এক সপ্তাহে তেলের দাম কমছে ১০ টাকা

সচিবালয় প্রতিবেদক : আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে প্রথম ধাপে প্রায় ১০ টাকা কমানো হচ্ছে জ্বালানি তেলের দাম। তবে বিদ্যুৎ ও গ্যাসের দাম এখনই কমছে না।বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বুধবার দুপুরে সচিবালয়ে নিজ দফতরে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।তিনি বলেন, জ্বালানি তেলের দাম কমানোর বিষয়ে সাতদিনের মধ্যেই প্রজ্ঞাপন জারি করা হবে। আশা করি, তেলের দাম কমলে যানবাহনের ভাড়া কমে আসবে। এতে জনগণও সুফল পাবে।তেলের দাম কমানো প্রসঙ্গে প্রতিমন্ত্রী বলেন, কেরোসিন, অকটেন, পেট্রোল, ডিজেলের দাম সমন্বয় করা হবে। তিন ধাপে মূল্য কমানো হবে। প্রথম ধাপ এক সপ্তাহের মধ্যে, দ্বিতীয় ধাপ ৫-৬ মাস পর, বাকিটা এর পরে করা হবে। তবে তিন ধাপে কত টাকা কমবে, তা এখনই নির্দিষ্ট করে বলা যাচ্ছে না।

নসরুল হামিদ বলেন, প্রথম ধাপে প্রায় ১০ টাকা এবং এ থেকে কমও হতে পারে। এখানে কেরোসিন, ডিজেল, অকটেন ও পেট্রোল রয়েছে। তাই কমানোর বিষয়টি ওইভাবে সমন্বয় করা হবে। ১০ টাকা থেকে ৬ টাকার মধ্যেও হতে পারে।তিনি বলেন তেলের দাম কমলেও গ্যাস ও বিদ্যুৎ এর ক্ষেত্রে তারা একটি চলমান প্রক্রিয়ায় আসতে চান।জ্বালানি ব্যবস্থাপনায় পরিবর্তন আসছে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, নতুন করে তারা সবকিছু ঠিক করছেন। তেলের দাম ধীরে ধীরে সাশ্রয়ের মধ্যে নিয়ে আসা হবে। অকটেন, পেট্টল, কেরোসিন, ডিজেল সাশ্রয়ী মূল্যে তারা জনগণকে দিতে চান।

তিনি বলেন, ইতিমধ্যে ফার্নেস অয়েলের দাম কমানো হয়েছে। এতে সরকারের বেশ কিছু জায়গায় সাশ্রয় হচ্ছে। এ সাশ্রয় সরাসরি জনগণের পর্যায়েও পৌঁছছে।নসরুল হামিদ বলেন, ট্রান্সপোর্টে ও ভ্যাসেলে জ্বালানি তেল ব্যবহার করার কারণে এসব খাতেও ভাড়া কমার সম্ভাবনা রয়েছে।প্রতিমন্ত্রী বলেন, তিনধাপে তেলের দাম কমানোর কারণ হলো তারা প্রথম ধাপে কমিয়ে এর ইতিবাচক ফলাফল দেখতে চান। বিপিসির কিন্তু দেনা রয়ে যাচ্ছে। পুরো দেনা এখনো শোধ করতে পারেনি। সাশ্রয়ী মূল্য থেকেও তাদের এ দেনা শোধ করতে হবে। এ কারণে একটু সময় নিয়ে তারা বিদুৎ এর মূল্য সমন্বয় করতে চান।