সুইডেনের পাসপোর্ট বিশ্বসেরা ফিনল্যান্ড দ্বিতীয়

ভিসামুক্ত পাসপোর্টে কতটি দেশে প্রবেশ করা যায়, তা দেখে অনুমান করা যায়, বিশ্বমঞ্চে কোন দেশের গুরুত্ব কত! ভ্রমণকারী কোন দেশের পাসপোর্ট বহন করছেন, তার ওপর নির্ভর করে অনেক কিছুই!

আন্তর্জাতিক ভ্রমণ ওয়েবসাইট গোইউরো (gouro)-এর এক গবেষণায় উঠে এসেছে, বিশ্বের চালচিত্রে সেরা ও দুর্বল অবস্থানে থাকা কয়েকটি দেশের পাসপোর্টের গুরুত্ব। বিনাভিসায় দেশ ভ্রমণের হিসেবে সেরা পাসপোর্টের তালিকায় রয়েছে, সুইডেনের নাম। সুইডেনের পাসপোর্ট কাছে থাকলে বিনাভিসায় মোট ১৭৪টি দেশে যাওয়া যায়। মাত্র ৪০ ইউরোতে মেলে সুইডিশ পাসপোর্ট।

ফিনল্যান্ডের পাসপোর্টে মোট ১৭৪টি দেশে ভিসামুক্ত প্রবেশাধিকার থাকলেও ফিনিশদের ৪৮ ইউরো ফি দিতে হয়। পাসপোর্টের ফি সুইডেনের সঙ্গে ৮ ইউরোর ব্যবধান থাকায় ফিনল্যান্ড গোইউরোর সামগ্রিক রেটিংয়ে নেমে এসেছে দ্বিতীয় স্থানে।

জার্মানি, ব্রিটিশ ও আমেরিকান পাসপোর্টেও বিনাভিসায় ১৭৪ দেশ ভ্রমণ করা যায়। মধ্যপ্রাচ্যের দেশ সংযুক্ত আরব আমিরাতে পাসপোর্টের ফি পৃথিবীর সবচেয়ে কম। মাত্র ১৩ ইউরো।

এদিকে, পাসপোর্টের জন্য সবচেয়ে ব্যয়বহুল দেশ তুরস্ক, ২৩৬ ইউরো পরিশোধ করতে একটি পাসপোর্ট বানানোর পেছনে। ন্যূনতম আয়ের মানুষ ৯৫ ঘণ্টা কাজের বিনিময়ে যে অর্থ উপার্জন করেন, তার পুরোটাই যাবে পাসপোর্টের পেছনে।

পাসপোর্টের এই রেটিংয়ের তালিকায় সবচেয়ে নিচে অবস্থান, আফগানিস্তান। আফগানিস্তানের পাসপোর্টে ভিসা ছাড়া মোট ২৮টি দেশে যাওয়ার অনুমতি রয়েছে। আর পাসপোর্ট পেতে ফি দিতে হয়, প্রায় ১০০ ইউরো।

সেরা ২০টি দেশের পাসপোর্ট তালিকায় প্রথম- সুইডেন, দ্বিতীয়- ফিনল্যান্ড ও তৃতীয়- জার্মানি। পর্যায়ক্রমে রয়েছে- যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র, ডেনমার্ক, কানাডা, স্পেন, বেলজিয়াম, নেদারল্যান্ডস, ফ্রান্স, পর্তুগাল, জাপান, ইতালি, নরওয়ে, অস্ট্রিয়া, আয়ারল্যান্ড, সিঙ্গাপুর, সুইজারল্যান্ড ও নিউজিল্যান্ড।